Logo
নোটিশ ::
আপনার যেকোনো সৃজনশীল লেখা পাঠিয়ে দিন আমাদের ঠিকানায়।আমাদের ইমেইল: hello.atharb@gmail.com

বন্ধুত্বের বন্ধন কর্তৃক “বন্ধু অনুচ্ছেদ” রচনা প্রতিযোগিতার ফলাফল ( প্রথম ক্যাটাগরি)

অঙ্কন ডেস্ক / ১০৫ বার
আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০

 

প্রথম স্থান অধিকারীঃ 

  • মোঃ সাইফুল ইসলাম
    কেন্দুয়া, নেত্রকোনা

“বন্ধু জীবনের অবিচ্ছেদ অংশ”
আমার ক্ষেত্রে বিশ্বাস ও ভালোবাসার বিপরিত শব্দ “রকিবুল” বললেও ভুল হবে না। হ্যা রকিবুল হচ্ছে আমার জীবনের সবচেয়ে কাছের বন্ধু। যার সাথে মিশে আছে আমার জীবনের প্রতিটি অধ্যায়। রকিবুলের সাথে হাজারো স্মৃতিবিজড়িত মুহুর্ত জমে আছে আমার স্মৃতির এলবামে, যা বর্ননাতে শেষ করা যাবে না। রকিবুলের বাড়ি আমাদের বাড়ি থেকে একটু দুরে হলেও আমাদের কোনদিন দেখা না হলে দিনটাই ভালো কাটতনা। স্কুল যদি বন্ধও থাকতো আমরা শুধু দেখা করার জন্য পাঁচ কিলোমিটার দুরে উপজেলা সদরে যেতাম। শৈশব কৈশোরে আমাদের বন্ধুত্ব ঠিক থাকলেও রকিবুল উচ্চ শিক্ষা লাভের জন্য পরিবারসহ ঢাকায় চলে গেলে আমাদের নিয়মিত যোগাযোগ রাখাটা সম্ভব হয়নি। ঈদে বাড়িতে আসলে দেখা হতো, জমিয়ে আড্ডা দিতাম। এখন আর ঈদেও আসে না। শুনেছি পড়াশোনা শেষ করে একটা মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানীতে খুব বড় পজিশনে চাকরি করে। আর আমি ডিগ্রীটা শেষ করে বাড়িতেই বেকার। চাকরীর জন্য বিভিন্ন জায়গায় ইন্টারভিউ দিচ্ছি। অনেকের কথায় একদিন একটা সিভি নিয়ে রকিবুলের অফিসে গেলাম। বিশাল বড় অফিস,বড় বড় কর্মকর্তাদের সাথে ওর উঠাবসা। দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষার পর রিসিপশনিষ্ট রুমে ওর সাথে দেখা হলো ঠিকই, কিন্তু ও যে ব্যবহার আমার সাথে করলো তার জন্য আমি মোটেও প্রস্তুত ছিলাম না। মনে হলো যেন ও আমাকে চিনেই না। আমিও কথা না বাড়িয়ে সিভিটা দিয়ে বেড়িয়ে আসলাম। আর মনে মনে ভাবছিলাম মানুষ এত সহজে বদলে যেতে পারে? ও কিভাবে পারলো আমাদের এতদিনের বন্ধুত্বের সম্পর্কটাকে ভুলে যেতে? সেদিন যে কি কষ্ট পেয়েছিলাম তা বুঝানোর মত নয়। এর কিছুদিন পর হঠাৎ বাড়ির সামনে গাড়ির আওয়াজ শুনে বের হলাম, গিয়ে দেখি রকিবুল। অমনি আমাকে জড়িয়ে ধরে বলল সরি বন্ধু, সেদিনের ব্যবহারের জন্য আমি খুবই দুঃখিত। আমাকে কিছু বলার সুযোগ না দিয়ে ও বলতে লাগলো, সেদিনের পর তোর সাথে বিভিন্ন ভাবে যোগাযোগের চেষ্টা করে, তোকে না পেয়ে তোর বাড়িতে চলে এলাম। সেদিন যদি সবার সামনে তোকে বন্ধু বলে পরিচয় করিয়ে দিতাম, তবে হয়তো তোকে চাকরীটা দেয়া সম্ভব হতো না। প্লিজ তুই আমাকে মাফ করে দে। এই নে তোর জয়েনিং লেটার, আগামী মাসের এক তারিখ তোর জয়েন। মনে রাখিস আমি যত বড় অফিসারই হইনা কেন, আমি যে তর বন্ধু। আমিতো তোর ভালোটাই চাইবো। কেননা বন্ধুত্ব যে জীবনের এক অবিচ্ছেদ অংশ।

 

দ্বিতীয় স্থান অধিকারীঃ

  • একান্ত খাঁন রুবেল
    আরামবাগ, কেন্দুয়া, নেত্রকোনা

আমার জীবনে অনেক বন্ধু আসবে, কিন্তু দিলশাদ, রানিম, আদনান, কাদির, শামীম,শাকিব, অপুর্ব, রাহাত, মবিন, তায়েফ, আরিফ তোদের মত হবে না।

সব বন্ধুত্ব আজীবন থাকবে না,
কেউ শুকনো পাতার মতো ঝরে পড়ে যাবে,

আমরা পৃথিবীতে সব সময় থাকার জন্য আসিনি,
মৃত্যু কখন হবে কেউ বলতে পারে না।

সবাই আবার বন্ধুদের সময় দিতে পারবে না ,
কারণ সবাই সবার কাজ নিয়েই ব্যস্ত থাকবে।
একদিন তো টাকা পয়সা সব হবে,
ওই সময় মজা করার জন্য কেউ আর পাশে থাকবে না।

যখন কোন স্কুলের কলেজের ছাত্র দেখবো – তখন তোদের কথা মনে পড়বে,
তোদের কথা ভেবে হাসতে হাসতে কান্না চলে আসবে।

মনে পড়ে যাবে আগের স্মৃতি গুলো, সবাই একসাথে স্কুল পালানোর কথা,
সবাই একসাথে বসে আড্ডা দেওয়ার কথা,

এক টেবিলে সবাই গাদা গাদি করে বসা, ক্লাস মিস দিয়ে আম চুরি করতে যাওয়া।
সবাই একসাথে খেলাধুলা করা

তোদের না দেখলে দিনটাই খারাপ যেত,

হয়তো সময়ের স্রোতে একদিন ঠিক হারিয়ে যাবো,
তাই সব সময় পাশে থাকিস – আমি না বললেও।

কারণ সময় তো আর কখনো ফিরে পাওয়া সম্ভব না।

অবশেষে একটা কথাই বলতে চাই সেটা হল – তোদের সবাইকে
অনেক অনেক ভালোবাসি।

 

তৃতীয় স্থান অধিকারীঃ

  •   আশিকুজ্জামান অপু
    নান্দাইল, ময়মনসিংহ

বন্ধুত্বের ক্ষেত্রেও প্রয়োজন মধ্যপন্থা অবলম্বন বন্ধুত্ব ভেঙে গেলে কোনো অযাচিত বিষয় প্রকাশ ও বিদ্বেষ পোষণ ইসলামে নিষিদ্ধ

বন্ধুত্বের সম্পর্ক যেহেতু আগে থেকে নির্ধারিত নয় এবং স্থায়ীত্বও নিশ্চিত করে বলা মুশকিল, তাই এ সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে প্রয়োজন হয় আলাদা যত্নের। সেই সঙ্গে মাঝে-মধ্যে ভালোবাসা প্রকাশের।

মানসিকতার প্রভেদে বন্ধুত্বের বহিঃপ্রকাশ হয় ভিন্নরকম। কেউ মনে করেন, প্রয়োজনে পাশে থাকা কিংবা বিপদে সাহায্য করার নাম বন্ধুত্ব। এর জন্য আলাদা প্রকাশের কোনো প্রয়োজন নেই। কেউ মনে করেন, বন্ধুর সার্বক্ষণিক খোঁজ-খবর না রাখলে কি আর বন্ধুত্ব হয়!
এ কারণে বন্ধুত্বের সম্পর্কের ক্ষেত্রে কখনও মনে হয়, তার প্রতি কোনো ভালোবাসা নেই।

আর এটা ভেবে মনের ভেতরে কষ্ট পুষে রাখেন। আবার কখনও কারও কাছে বন্ধুত্ব হয়ে দাঁড়ায় অপ্রকাশ্য যন্ত্রণা।
কেউ ভাবেন, বন্ধু মানে খোলা খাতা। এ সম্পর্কে কোনো গোপনীয়তা নেই। নিজের সবটাই ভাগাভাগি করে নেওয়াই বন্ধুত্ব। আবার তারাই দু’দিন পর বলেন, বন্ধুত্ব মানে প্রতারণা, দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে সুবিধা আদায় করা। কেউবা নিজের গোপনীয়তা বজায় না রাখায় নিজেকেই দোষারোপ করেন।

অর্থাৎ সম্পর্কের ক্ষেত্রে নিজেকে এতটা উজাড় না করা চাই, যেন পরে তা অস্ত্র হয়ে দাঁড়ায়। আবার এতটা অন্তর্মুখী হওয়াও বন্ধুত্বের জন্যে ক্ষতিকর, যা দূরত্ব তৈরি করে। মাঝে-মধ্যে প্রকাশ প্রয়োজন- যেন সম্পর্কটা সুন্দর হয়।

 

 


এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com