Logo
নোটিশ ::
আপনার যেকোনো সৃজনশীল লেখা পাঠিয়ে দিন আমাদের ঠিকানায়।আমাদের ইমেইল: hello.atharb@gmail.com

তাফসির ইসলাম ইমরান’এর একগুচ্ছ কবিতা

অঙ্কন ডেস্ক / ২৬ বার
আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০২০

বেশ আছি 

এমনি ভালোই আছি, বেশ আছি
খাই দাই গান গাই,
বাজারে তো খুব বেশি যাইনি।
দুঃখের কথা আর কাকেই বা বলি ভাই
কতদিন চটপটি,ফুচকা খাইনি।

থালাবাটি বাজিয়েছি খুব করে সেইদিন
মোমবাতি, পটকাও ফাটিয়েছি।
তারপরেও কিছু হল না।
কেন জানি,ভাইরাসগুলো তবু মরেনি;
এইটাই আজও লাগে খটকা।

যুদ্ধেও সায় দিবো খাটে বসে সারাদিন
বিরিয়ানি,খিচুড়ি খাবো না
এইভাবেই দিন কাল চলছে চলবে
তবুও মানুষের ভিরে আমি যাবো না।
ভাইরাসকে নিজের কাছে –
আসতে আমি দিবো না।


ভোরের অপেক্ষা 

তোমার বাসায় জ্বলে ঝিলিক বাতি
আমার বাসায় কালো রাত্রি।
হতবাক রাত আসে
নিশুতিরা চারপাশে
বেঁচে থাকে,খুঁটে খায় ক্ষত!

তুমি থাকো শীতলপাটির পাশে
আর আমার কাছে রোজ জোৎসানাটা একা একা আসে।
আমি বসে বসে জোৎসানাময় রাতে শুধু তোমার কথাই ভাবি।

ভাবতে থাকি –
তুমি আমি হেঁটে যাই
নদীপথে ভেসে যাই
কিন্তু, কেন জানি বাকি সব মিথ্যার মত!
আর চিন্তা করি –

ধানের খেতে প্রতিনিয়ত কত বান ভেসে যাচ্ছে –
আর পাড়া-পড়শিরা সেখানে শুধুই ভাতের ফ্যান ঢেলে খায়।
ভাতঘুমে তার চোখ জুড়ে যায়
বাতাসের সুবাসে।

তবুও আমি প্রতিনিয়ত অপেক্ষা করি
আমাদের ঘোর কালো রাত্রিটা কেটে যাবে –
হ্যাঁ কেটে যাবে।
আবার নতুন ভোর আসবে।

উদীত হবে সোনালি উষা।
কেটে যাবে পাড়া-পড়শির দুঃখদুর্দশা;
তখন জোৎসানায় বসে তুমি আর আমি গল্প করবো।

হ্যাঁ আসবে নতুন ভোর।
আমি সেই নতুন ভোরের অপেক্ষায় থাকবো।
তোমাকে ফিরে পাবার অপেক্ষায়!


ইচ্ছা

তুমি চির বর্ষাপ্রেমী, আর আমি খুঁজে বেড়াই একটুখানি রোদ!
রোজ ব্যাথা বাড়ে, বুকের ভিতরে ঝড় ওঠে জোর;

ইচ্ছা শুধুই –
আবার, আমায় মনে পড়বে
একটু খানি ঐ –
জ্যোৎস্না রাতে খুজবে তুমি
মুচকি হাসি কই?

ধুক ধুকানি বুকেতে
মনের ক্ষণে নাই,
ব্যাকুলতায় আমায়
বলবে শুধু তোমাকেই চাই।

সেদিন দু’জনায় ভেসে যাবো অজানায়, কোনো এক মোহনার শেষে যাবো।
হোক না সে ক্ষণিকের ঘোর!
তবুও তো যাওয়া হবে।


শেষ কোথায় 

এখনো শুনতে পাই পিদিমের ঘরে
আঙুল দুলিয়ে শিশু পদাবলী পড়ে
অজানা শহরে কত প্রেম নিরুপায়য়
অজান্তে জন্মায়,আর মরে যায়।

এখনোও শুনতে পাই –
বাবার মৃত্যুর দিন গন- ধর্ষিত হয় হীরামনি!
এখনোও শুনতে পাই,
অফিসারের আঁধারের দাফন।
বাসের ভিতরে ধর্ষিতা মাজেদা।
ছেলের সামনে ধর্ষিতা মা।
ভাইয়ের সামনে ধর্ষিতা বোন।

এখনোও শুনতে পাই –
সরকারি ভবনে রডের বদলে বাঁশ।
এখনো ক্লান্তি ফিরে বিকেলের বাসে
শঙ্খ মানায় ভালো আজানের পাশে।

পুরনো খাতার ফাঁকে ব্যার্থতা একা
ছাদের কাপড়ে আজও জুড়ে জুড়ে থাকা!
তুমিও ফুটবে জানি একগাল হেসে
আমাদের দেখা হবে মহামারী শেষে।


টান

মাটির প্রতি আমার একটা টান আছে
জন্মের পর থেকেই।
সেটা মহাকর্ষ নয়, এমনিই এলোমেলো
যেমন করে জড়তায় বেড়ে ওঠে গাছ।
তার শিকড় থাকে মায়ের কাছে,

তেমনি আমারও একটা টান আছে –
ঐ মাটির প্রতি।
পুরোনো বিকেল জুড়ে সাইকেল ছোটে
আর,আমার কেন জানি বুনোহাঁস ধরা বাকি রয়ে যায়।

তখনও যুদ্ধ শুরু হয়নি পৃথিবীতে।
ওপারের কদম গাছে ফুল আসে
আর, এইপারে ভালোবাসা লাল হয়ে ফোটে;
শাপলার বনে ঢেউ তুলে বাতাস।
আর আলপথে হেঁটে ফেরে চারুলতা।

কেন জানি –
মাটির প্রতি আমার একটা টান আছে,
সেটা মহাকর্ষ নয়, এমনিই এলোমেলো।
কাঁটাতারের দুপাশে মানুষের ঘর আর কাদামাটি।
আর, মাটির প্রতি সেই টান-টা আমার থেকেই গেছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com